Home / ত্বক / বুঝবেন কীভাবে কোন সানস্ক্রিনটি আপনার ত্বকের জন্য উপযোগী?

বুঝবেন কীভাবে কোন সানস্ক্রিনটি আপনার ত্বকের জন্য উপযোগী?

ত্বকের সমস্যায় ভোগেন না, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া সত্যিই মুশকিল। হাজারো প্রসাধনী ব্যবহার করেও ত্বকের সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়া যায় না। আমাদের ত্বককে সবথেকে বেশি ক্ষতি করে সূর্যের থেকে আসা অতিবেগুনী রশ্মি। অনেকেই আছেন যারা রোদে ঘরের বাইরে পা রাখেন না। তবে, সেটা কোনও স্থায়ী সমাধান নয়। তাই, রোদের হাত থেকে ত্বককে রক্ষা করতে সানস্ক্রিন লোশন বা ক্রিম সবথেকে উপকারী জিনিস। অনেক সময়ই আমরা এই ধরনের লোশন বা ক্রিম ব্যবহার করি না। ফলে আমাদের ত্বক বলিরেখা, কালশিটে ভাব এবং নানা রকম সমস্যার দ্বারা আক্রান্ত হয়। এমনকি অতিবেগুনী রশ্মি ত্বকের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে ডি এন এ- এর গঠন পর্যন্ত পরিবর্তন করতে পারে, যা ত্বকের ক্যান্সারের অন্যতম কারণ।

কি ভাবছেন? আজ থেকেই সানস্ক্রিন লোশন বা ক্রিম ব্যবহার করা শুরু করবেন তো? কিন্তু কি করে বুঝবেন, কোন লোশনটি আপনার ত্বকের জন্য উপযোগী? এইসব প্রশ্নের উত্তর পেতে চোখ বুলিয়ে নিন বোল্ডস্কাই-এর এই প্রতিবেদনে। প্রথমেই বলে নেওয়া ভালো যে যখনই সানস্ক্রিন লোশন কিনবেন, তখনই দেখে নেবেন তাতে এস.পি. এফ বা সান প্রোটেকশন ফ্যাক্টর আছে কিনা। আরও ভাল হয় যদি এই সম্বন্ধে বিস্তারিত জ্ঞান থাকে। তবে দেখে নেওয়া যাক, এস.পি.এফ বা সান প্রোটেকশন ফ্যাক্টর আসলে কি? এটি এমন একটি উপাদান, যা সানস্ক্রিনে উপস্থিত থেকে ত্বককে সূর্যরশ্মির ক্ষতিকারক ইউ.ভি.এ এবং ইউ.ভি.বি-এর থেকে রক্ষা করে। যেমন, এস.পি.এফ-১৫ যুক্ত সানস্ক্রিন ১৫০ মিনিট পর্যন্ত রোদের হাত থেকে ত্বককে বাঁচায়। শুধু তাই নয়, এস.পি.এফ-১৫ আমাদের ত্বককে ৯৩ শতাংশ পর্যন্ত ইউ.ভি.বি রশ্মির হাত থেকে রক্ষা করে থাকে। আমাদের অনেকেরই এই ধারনা আছে যে বেশী এস.পি.এফ যুক্ত সানস্ক্রিন আমাদের ত্বকের জন্য বেশী ভালো। যদিও, এই ধারণা ঠিক নয়। ত্বক বিশেষজ্ঞদের মতে সানস্ক্রিন লোশন ১৫ বা ৩০ যাই এস.পি.এফ যুক্ত হোক না কেন, প্রতি দু’ঘণ্টা অন্তর তা ব্যবহার করতেই হবে। সবথেকে বড় কথা হল, সানস্ক্রিন ছাড়া আমাদের ত্বক ১৫ মিনিটের মধ্যে ক্ষতির সম্মুখিন হতে শুরু করে। সঠিক সানস্ক্রিন লোশন বেছে নেওয়ার আরও একটি পদ্ধতি হল, সেই লোশনের কার্যকারিতা কতক্ষণ বজায় থাকে তা দেখে নেওয়া। এইজন্য সবথেকে ভালো ওয়াটার প্রফ সানস্ক্রিন বেছে নেওয়া, যাতে গরমে বা বর্ষায় অনায়াসে দু’ঘণ্টা মুখে থেকে যায়।

এছাড়াও সানস্ক্রিন লোশন কতটা পরিমাণে ব্যবহার করছেন, তার ওপরেও আপনার ত্বকের যত্ন নির্ভর করছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতি স্কোয়ার সেন্টিমিটারে দুই মিলিগ্রাম সানস্ক্রিন অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে। কারণ ত্বক অনুযায়ী ক্রিমের পরিমাণ কমবেশী হলে তা ত্বকেরই ক্ষতি করে। এছাড়াও, সানস্ক্রিন ব্যবহার করার সময় খেয়াল রাখতে হবে যে রোদে বেরনোর ঠিক আধ ঘণ্টা আগে সানস্ক্রিন মেখে নিতে হবে। এর ফলে, ত্বকের ভেতরে ক্রিম প্রবেশ করতে পারবে এবং রোদে বেরনোর জন্য ত্বককে তৈরি করতে পারবে।

তাহলে সানস্ক্রিন ব্যবহারের সঠিক পদ্ধতিগুলি হল:

১। পরিমাণমত সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করতে হবে।

২। সানস্ক্রিন লোশন ওয়াটার প্রফ হতে হবে।

৩। রোদে বেরনোর আধ ঘণ্টা আগে লাগাতে হবে।

৪। প্রতি দু’ঘণ্টা অন্তর সানস্ক্রিন লাগাতে হবে।

Check Also

কাঁচা সোনার মতো উজ্জ্বল ত্বক চাইলে ভরসা রাখতেই হবে কাঁচা হলুদে

রূপটানের কথা উঠলে একদম প্রথমদিকেই থাকবে হলুদের নাম। এমনিতেই যে কোনও উৎসবে পার্বণ হলুদ ছাড়া …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *